অনুসন্ধান

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভি, গতকাল, এপ্রিল ৫ তারিখ রবিবার, করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জ সিটি লকডাউনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট অনুরোধ জানিয়ে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। সংবাদ মাধ্যমে এই বিজ্ঞপ্তি প্রচার হওয়ার কিছুক্ষণের মাঝেই সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রচার হওয়া শুরু হয় তার মৃত্যুর সংবাদ।

Monjur Mohammad Shahriar

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার, তার ফেসবুক পেইজ থেকে মেয়র আইভি’র মৃত্যুর সংবাদ শেয়ার করেন।

এই সংবাদের বিবরণে জানা যায়, এপ্রিল ৫ তারিখ সেলিনা হায়াত আইভি করোনাভাইরাস রোগে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ইন্তেকাল করেছেন। এই সংবাদকে সমর্থন করে এমন একটি স্ট্যাটাস পাওয়া যায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর (ঢাকা বিভাগ) এর উপপরিচালক, মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার এর ফেসবুক পেইজে। অবশ্য প্রকাশের কিছুক্ষণের মাঝেই তার স্ট্যাটাসটি মুছে ফেলা হয়। তবে মুছে ফেলার পূর্বেই, তার অসংখ্য ফলোয়ারের মাধ্যমে সংবাদটি নিমিষেই ভাইরাল হয়ে যায়।

এই সংবাদের মূল উৎস হিসেবে মানুষ দোষারোপ করতে থাকে একাত্তর টিভিকে। কেউ কেউ দাবী করে টিভি চ্যানেলটি এমন একটি সংবাদ প্রচার করছে। অতঃপর, এই ‘মৃত্যু’ গুজবের অন্তরালের ঘটনা স্বচ্ছ হয় চ্যানেলটির সংবাদ স্ক্রলে।

সেদিন সন্ধ্যা ৬টার দিকে একাত্তর টিভির সংবাদ স্ক্রলে দেখা যায় এই লেখাগুলো—

লাইন ১: নারায়ণগঞ্জের শহর এলাকায় লকডাউন বা প্রয়োজনে কারফিউ …

লাইন ২: জারির জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন …

লাইন ৩: নারায়ণগঞ্জ সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভি

লাইন ৪: করোনায় আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কে মারা গেছেন…

লাইন ৫: বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ

বুঝাই যাচ্ছে কী হয়েছে! একাত্তর টিভি তাদের স্ক্রলে কোন সংবাদের লাইনের শেষে বিরামচিহ্ন, যেমন দাঁড়ি ব্যবহার করে, লাইনের সমাপ্তি দেখায় না। এবং কোন লাইন একই স্ক্রলে শেষ না হলে সেটির পরে তিনটি ডট (…) দিয়ে অসমাপ্তি বুঝায়।

কোন এক অসতর্ক পাঠক লাইন ১-২ ও ৫ না পড়ে লাইন ৩ ও ৪ পরপর পড়ে। অর্থাৎ, দুইটি পৃথক সংবাদের স্ক্রলের অর্ধাংশ এক করে পড়ার ফলে এই গুজবের সৃষ্টি হয়। যেটির অর্থ দাঁড়ায়—

“নারায়ণগঞ্জ সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভি, করোনায় আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কে মারা গেছেন…”

এবং এটিই শুরু করে গুজবের বিস্তৃতি। একাত্তর টিভির এই ভিডিওতে দেখা যাবে স্ক্রল সংবাদ দুইটি—

জনাব শাহরিয়ার তার ফেসবুকে নতুন আরেকটি স্ট্যাটাসে বলেন—

“আমার ফেসবুক আইডি এবং পেইজ দুষ্কৃতিকারীদের দ্বারা সাময়িকভাবে হ্যাক হয়েছিলো।

দয়া করে কেউ বিভ্রান্ত হবেন না। খবরটি সঠিক নয়।

মেয়র মহোদয় নারায়ণগঞ্জকে লক ডাউনের অনুরোধ করেছেন।

তিনি সুস্থ আছেন।

সকলে সুস্থ থাকুন, নিরাপদে থাকুন এবং এই দুঃসময়ে কেউ যেনো কোনভাবে বিভ্রান্তি ও গুজব না ছড়াতে পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখুন।”

এই স্ট্যাটাসটিও তিনি কিছুক্ষণ পর মুছে ফেলেন। জনাব শাহরিয়ারের ফেসবুক একাউন্ট আসলেই হ্যাক হয়েছিল কিনা সেটি না জানা গেলেও, তিনি ও মেয়র আইভি যে “বিরামচিহ্ন বিড়ম্বনার” শিকার সেটি সুস্পষ্ট।

তাই, সতর্ক থাকুন, দেখে, পড়ে ও বুঝে, দায়িত্বের সাথে শেয়ার করুন!

প্রথম প্রকাশ:
সর্বশেষ হালনাগাদ:

পাদটীকা

মন্তব্য

আমাদের ফেসবুকগ্রুপে আলোচনায় যুক্ত হোন।: www.facebook.com/groups/jaachai