অনুসন্ধান

মূল উৎপত্তি

গত এপ্রিল ১৮ তারিখ, শনিবার, আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের মা, মুক্তিযোদ্ধা জাহানারা হক মৃত্যুবরণ করেন। তিনি বাংলাদেশের অন্যতম সংবিধান প্রণেতা প্রয়াত অ্যাডভোকেট সিরাজুল হকের স্ত্রী। সংবাদ থেকে জানা যায় যে বনানীর ১১ নম্বর রোডের পাশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে পারিবারিকভাবে ও সীমিত পরিসরে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এপ্রিল ২০ তারিখে ‘আল্লামা মামুনুল হক্বের সমর্থক’ নামক একটি ফেসবুক পেইজ থেকে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়। সেটির বিবরণে উল্লেখ করা হয়-

সরকারী আইন অমান্য করে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের মায়ের জানাজা
.
এব্যাপারে একাত্তর টিভির ঘন ঘন লাউভ হবে না। কেউ প্রশ্ন তুলবে না। এই জানাজায় খোদ মারহুমার ছেলের অনুপস্থিতি নিয়ে মৃতের করোনার আশংকা প্রকাশ করবে না। তবুও চলেন কাল্পনিক একটা অনুষ্ঠান দেখি।
.
এব্যাপারে গ্রেণেড মুফতিকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ম্যাঁআ, ম্যাঁআ। আমি মরহুমার শান্তি ও কইল্যাণ পইত্যাশা করি। জানাজা একটি ধর্মিয় কাজ। জামাত শিবিরের ছেলেপেলেরা জানাজা নিয়ে প্রশ্ন তোলে। ওরা শোলাকিয়াতেও ইদের নামাজের জানাজায় হামলা করেছিলো। ফাঁসী চাই।
.
বালেস্টার সুমন বলেন, এই যে আমি যেখান থেকে লাইভে আসছি এইখানে হাজার হাজার মানুষের জানাজা, মানি আনিচুল হকের মায়ের জানাজা। এই জানাজা যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের গ্রহণযোগ্যতা প্রমাণ করে। আপনারা নিয়মিত এইভাবে জানাজায় থাকবেন। সবাইকে সালাম।
.
বিচিষ্ট **** পোলা জ.ই মামুন বলেন, আজ থেকে কাউকে গালি দিতে হলে বলমু তুই একটা আইনমন্ত্রী। যদিও তিনি এরজন্য পরে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন।

এপ্রিল ২০ তারিখে ‘আল্লামা মামুনুল হক্বের সমর্থক’ নামক একটি ফেসবুক পেইজ থেকে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়।

এর পরপরই বিভিন্ন পেইজ থেকে ভিডিওটি রি-আপলোড দেওয়া হয় এবং স্ক্রিনশট নিয়ে তা প্রচার করা হয় “আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের মায়ের জানাজা” হিসেবে।

ভিডিওটি বিভিন্ন শিরোনামে রিআপলোড করা হয় বিভিন্ন পেইজ ও প্রোফাইল থেকে।

এসব ভিডিওগুলো থেকে যদিও এটি স্পষ্ট যে এটি বনানী বা বনানী কবরস্থান এলাকা থেকে ধারণ করা হয়নি।

প্রচারিত ভিডিওগুলোর উপরে ‘RiTV’ নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলের লোগো পাওয়া যায়। চ্যানেলটিতে গিয়ে পাওয়া যায় মূল ভিডিওটি। যার শিরোনাম “ভূমি মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর জানাজা নামাজ । Pabna Dilu MP” যা আপলোড করা হয় এপ্রিল ২ তারিখে।

উল্লেখ্য, শামসুর রহমান শরীফ ডিলু ২০১৪ সালে ভূমিমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। ৮০ বছর বয়সে এপ্রিল ২, ২০২০ তারিখে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। সেদিন পাবনার ঈশ্বরদীতে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে লক্ষ্মীকুন্ডা ইউনিয়নে তার গ্রামের বাড়িতে আরেকটি জানাজার পর পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। প্রচারিত ভিডিওটি তার জানাজার।

প্রথম প্রকাশ:
সর্বশেষ হালনাগাদ:

পাদটীকা

মন্তব্য

আমাদের ফেসবুকগ্রুপে আলোচনায় যুক্ত হোন।: www.facebook.com/groups/jaachai